Super Arrow ৬ষ্ঠ প্রজন্মের ফাইটার যুদ্ধবিমান

Super Arrow ৬ষ্ঠ প্রজন্মের ফাইটার যুদ্ধবিমান
.
.
সবাই কে চমকে দিয়ে কানাডা এবার শুরু করেছে তাদের ৬ষ্ঠ প্রজন্মের ফাইটার জেট তৈরির কাজ । এরেই মধ্যে তারা ৬ষ্ঠ প্রজন্মের প্রজন্মের ফাইটার জেটের ডিজাইন ও ফ্লাইট টেস্ট সম্পন্ন করেছে ।
কানাডার এই ৬ষ্ঠ প্রজন্মের ফাইটার যুদ্ধবিমানের নাম Super Arrow বা সুপার অ্যারো ।
.
.
আসলেই সবাই চমকে গেলেও আমি ব্যাক্তিগত ভাবে খুব একটা চমকে যাইনি । বরং কানাডার এই ৬ষ্ঠ প্রজন্মের সুপার অ্যারো যুদ্ধবিমান নিয়ে আমিও কিছুটা সন্দিহান ।
.
কেননা কানাডা এমন একটি দেশ যারা এই ধরনের উচ্চ প্রযুক্তির যুদ্ধবিমান তৈরি করা তো দূরে থাক তারা আজ পর্যন্ত ঠিক করে কোন যুদ্ধবিমান তৈরি করতে পারেনি ।
১৯৫৮ সালের দিকে কানাডা Avro Arrow নামে ২য় প্রজন্মের ফাইটার জেট এর প্রটোটাইপ তৈরি করেছিল এবং আকাশে সফলভাবে উড়িয়ে ছিল ।
কিন্তু ১ বছর পর অর্থাৎ ১৯৫৯ সালে তারা এই যুদ্ধবিমানের তৈরির প্রজেক্ট বন্ধ করে দেয় ।


.
এত কথা বলছি এইজন্য কানাডার মত দেশ যারা কিনা যুদ্ধবিমান কখনো তৈরি করেনি তারা কিনা এক লাফে ৬ষ্ঠ প্রজন্মের যুদ্ধবিমান তৈরি করবে !!
.
অথচ এখনো বিশ্বের যুক্তরাষ্ট্র , রাশিয়া ও চীন ঠিকভাবে তাদের ৫ম প্রজন্মের ফাইটার জেটগুলো তৈরি করতে পারেনি । যুক্তরাষ্ট্রের F-22 , F-35 , চীনের J-20 , J-31 এবং রাশিয়া তাদের Su-57 এর মতো ৫ম প্রজন্মের ফাইটার জেট গুলো ঠিক ভাবে তৈরি করতে পারেনি এবং উক্ত এইসকল ৫ম প্রজন্মের ফাইটার জেটগুলো তে ব্যাপক প্রযুক্তিগত ত্রুটি ধরা পড়েছে ।
.
এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র F-22 ও F-35 এর মত ৫ম প্রজন্মের যুদ্ধবিমানগুলো কে স্টিলথ বললেও এক অনুশীলনের সময় দেখা গেছে F-22 , F-35 রাডারে ধরা পড়ে ।
এছাড়া বর্তমানে অত্যাধুনিক রাডারগুলো এতটাও অকার্যকর নয় যে আপনি চাইলে এগুলো সব ফাকি দিতে পারবেন ।

ছবিতে কানাড়ার ৬ষ্ঠ প্রজন্মের ফাইটার যুদ্ধবিমান Super Arrow এর প্রটোটাইপ


যেখানে ৫ম প্রজন্মের ফাইটার যুদ্ধবিমান কোন দেশ সঠিকভাবে তৈরি করতে শেখেনি সেখান ৬ষ্ঠ প্রজন্মের ফাইটার যুদ্ধবিমান গুলো তৈরিতে অত্যান্ত ব্যয়বুহুল ও এতে যে প্রযুক্তি ত্রুটি থাকবে না তার গ্যারান্টি স্বয়ং এসব যুদ্ধবিমান তৈরির নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোও দিতে পারছে না ।
.
.
তবে এখানে কানাডা বেশ আত্মবিশ্বাসের সাথে বলছে তারা অত্যান্ত গোপনেই Super Arrow ৬ষ্ঠ প্রজন্মের যুদ্ধবিমান তৈরি করছে । এতে থাকবে সর্বাধুনিক উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার ও অত্যাধুনিক অস্ত্রশস্ত্র । তাই কানাডা আপাতত এই বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাবে না বলেছে । তবে কানাডার প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয় জানিয়েছে ২০৩০ সাল নাগাদ তারা Super Arrow ৬ষ্ঠ প্রজন্মের ফাইটার যুদ্ধবিমান সার্ভিসে আনবে ।
.
.
কানাডা যেহেতু একা নিজেরাই এই ৬ষ্ঠ প্রজন্মের ফাইটার জেট তৈরি করবে তাই দেখার বিষয় অত্যান্ত ব্যয়বুহুল খরচ সামলে কতটুকু প্রযুক্তিগত সক্ষমতার ৬ষ্ঠ প্রজন্মের যুদ্ধবিমান তৈরি করতে পারে । কারন ৬ষ্ঠ প্রজন্মের যুদ্ধবিমান তৈরি করা চাট্টিখানি কথা না !

Post Author: admin

10 thoughts on “Super Arrow ৬ষ্ঠ প্রজন্মের ফাইটার যুদ্ধবিমান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *